Business Week 
Image
Business Week Image

কেন লিনাক্স


সফটওয়্যারে গোপন কিছু থাকবে না।

"Closed source" (স্বত্ব-সংরক্ষিত) এবং "Open source" সফটওয়্যারের পার্থক্য হচ্ছে তাদের একটার "source" সবার দেখার জন্য উন্মুক্ত অন্যটার ক্ষেত্রে তা নয়। "source" কি? সহজ কথায়, "source" হচ্ছে একটা সফটওয়্যারের সিক্রেট রেসিপি, ঠিক একটা কেক বানানোর রেসিপির মত। আপনি একটা কেক খেয়ে কখনই ঠিক ঠিক তার রেসিপিটা বলে দিতে পারবেন না। (কিছুটা হয়তো অনুমান করতে পারবেন, যেমনঃ "এই কেকে কিছু নারকেল আছে।") যদি একটা বেকারী তাদের খুবই জনপ্রিয় কোন একটা কেকের রেসিপি সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়, তাহলে নিঃসন্দেহে তাদের ব্যবসা মার খাবে... কারন মানুষজন সেই রেসিপি থেকে বাসায় বসেই কেক বানিয়ে খেতে পারবে, কেউ বেকারীতে আর সেই কেক কিনতে আসবে না। ঠিক একইভাবে মাইক্রোসফটও তাদের সফটওয়্যার (যেমন Windows) এর রেসিপি বা "source code" সবার জন্য উন্মুক্ত করে রাখে নি, কারনটা স্পষ্ট, এটাই তাদের সব আয়ের উৎস।

সমস্যাটা হচ্ছে এরকম প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের প্রোগ্রামের ভেতর যা খুশি তাই ঢুকিয়ে দিতে পারে, এবং সেটা আপনার জানার কোনই উপায় নেই। তারা যদি চায় তবে প্রোগ্রামের ভেতর এমন একটা কোড রাখতে পারে যেটার কাজ অনেকটা এরকম- "প্রতি ১২ মাস পরপর, যদি কম্পিউটার অনলাইন থাকে, তবে এক বছরে যত ফাইল এই কম্পিউটারে ডাউনলোড করা হয়েছে তার একটা লিস্ট মাইক্রোসফটে পাঠাও"। হয়তো মাইক্রোসফট এরকম কাজ করে না, কিন্তু সেটা নিশ্চিতভাবে জানার কোন উপায় নেই, কারন সব সোর্স "closed", অদৃশ্য এবং গোপন।

কিছুদিন আগে (২০০৮ সালের অক্টোবরে) অনেক চীনা Windows ব্যবহারকারী (যাদের অধিকাংশই বাংলাদেশীদের মত Windows এর পাইরেটেড (নকল) কপি ব্যবহার করে) দেখল তাদের কম্পিউটারে খুব আজব একটা ঘটনা ঘটছে: প্রতি ঘন্টায় একবার করে কয়েক সেকেন্ডের জন্য স্ক্রীন কালো হয়ে যাচ্ছে। এমন আহামরি কোন সমস্যা নয়, কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ কাজের মাঝখানে মাথা গরম করার জন্যে যথেষ্ঠ। পরে জানা গেল মাইক্রোসফট তাদের সাম্প্রতিক Windows আপডেটে এরকম একটা কোড রেখেছে যেটাতে বলা আছে- "পাইরেটেড কপি পেলে প্রতি ঘন্টায় কয়েক সেকেন্ডের জন্য স্ক্রীন বন্ধ করে দাও"। এই আপডেটটা সবাই অটোমেটিক পেয়েছে, কারোই জানার কোন উপায় নেই আপডেটে কি আছে।

"Open Source" সফটওয়্যারের ব্যাপারটি পুরোপুরি অন্যরকম। এক্ষেত্রে সফটওয়্যারের source পরিবর্তন করা একটা সম্পূর্ণ উন্মুক্ত প্রক্রিয়া। নাম থেকেই বোঝা যাচ্ছে, এখানে সব সোর্স বা রেসিপি সবার জন্য উন্মুক্ত (open)। আপনি যদি সোর্সকোড পড়তে না পারেন তবে আপনার জন্য হয়তো এটা ভিন্ন কিছু না, কিন্তু অনেক মানুষই (যারা প্রোগ্রামিং জানে) এগুলো পড়ে বুঝতে পারবে এবং এগুলো নিয়ে খোলামেলা আলোচনা করতে পারবে। এবং এরকম ব্যাপার হরহামেশাই ঘটছে। যখনি কোন ডেভেলপার সোর্সকোড পাল্টাতে যাবে, বাকিরা সবাই পরিবর্তনটা দেখতে পারবে। (খারাপ কিছু দেখলে বলতে পারবে- "ওই মিয়া, ফাজলামো পেয়েছ নাকি? ইউজার কীবোর্ড দিয়ে কি পাসওয়ার্ড দেয় সেটা রেকর্ড করে রাখছ কেন?")। এমনকি পুরো টীমও যদি কোন খারাপ উদ্দেশ্যমূলক কোড সোর্সে রেখে দেয় তাতেও লাভ নেই। যেহেতু সোর্সকোড উন্মুক্ত রেখেই সেটা বাইরে ছাড়তে হবে, বাইরের কোন প্রোগ্রামার সহজেই সেটা ধরে ফেলতে পারবে। বাইরের সে প্রোগ্রামার হয়তো খারাপ অংশগুলো বাদ দিয়ে সফটওয়্যারটি নতুনভাবে বাইরে প্রকাশ করতে পারবে। অন্যরা আবার সেটা খুলে দেখে নিশ্চিত হতে পারবে।

তাইতো আপনি নিশ্চিত থাকতে পারেন যে ওপেন সোর্স প্রোগ্রাম কখনই আপনাকে না জানিয়ে খারাপ কিছু করবে না: কারন একটা বড় ডেভেলপার কমিউনিটি আছে যারা সবসময় সব রেসিপি (সোর্সকোড) এর উপর কড়া নজর রেখে চলেছে।