Business Week 
Image
Business Week Image

কেন লিনাক্স


নিরাপদ রাখুন কম্পিউটার।

Windows কে বিভিন্ন ভাইরাস, trojan, adware, spyware এগুলো খুব সহজেই আক্রান্ত করতে পারে। Windows XP (সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত "Service Pack 2") ইন্সটল করা একটি পিসিকে ইন্টারনেটে সংযুক্ত করার গড়পড়তা ৪০ মিনিটের মধ্যে সেটি আক্রান্ত হয়ে যায়। Windows 7 এর অবস্থা অবশ্য তুলনামূলকভাবে ভাল। তারপরেও এ্যান্টিভাইরাস ইন্সটল না করে ইন্টারনেটে সংযুক্ত করলে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় শতভাগ।

সমাধান কি? ১) ফায়ারওয়াল বসাতে পারেন, ২) অবশ্যই এ্যান্টিভাইরাস ইন্সটল করতে হবে, ৩) কোন কোন ক্ষেত্রে এ্যান্টিভাইরাসের সাথে anti-adware ও প্রয়োজন হতে পারে। ৪) Internet Explorer ও Outlook ব্যবহার করা বাদ দিতে হবে (পরিবর্তে Firefox আর Thunderbird চালানো যেতে পারে), এবং ৫) প্রার্থনা করতে হবে যেন কুচক্রীর দল আপনার এ নিরাপত্তা বলয় ভাঙতে না পারে (প্রায়ই তারা ভাঙতে সফল হয়, আর একারনেই আপনাকে বারবার এ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার আপডেট করতে হয়)... যদি নিরাপত্তার ক্ষেত্রে Windows এর কোন ত্রুটি ধরা পড়ে, দোয়া-দরূদ পড়ুন যেন মাইক্রোসফটের লোকজন দ্রুত সেটা বুঝে নিয়ে পরবর্তী আপডেটে সেটা সারিয়ে দেয় (যেটা সহসা ঘটে না)। এসবকিছুর পরিবর্তে অবশ্য আপনি আরেকটা কাজ করতে পারেন-- লিনাক্স ইন্সটল করে দিয়ে নাকে তেল দিয়ে ঘুমাতে পারেন।

"ভাইরাস" সেকশনে একথা আগেও বলা হয়েছে... লিনাক্স বা যেকোন Open Source সফটওয়্যার মানেই অনেক বেশি মানুষ সেটার সোর্সকোড পড়ে দেখতে পারবে। পৃথিবীর যেকোন প্রোগ্রামার যেকোন ওপেন সোর্স প্রোগ্রামের কোড ডাউনলোড করতে পারবে, খুলে সোর্সকোড পড়ে দেখতে পারবে কোথায় নিরাপত্তাজনিত সমস্যা থাকতে পারে। অন্যদিকে মাইক্রোসফটের আছে বড়জোর এক-দেড়হাজার বেতনভুক্ত প্রোগ্রামার, যারা Windows এর মত প্রোপাইটরি সফটওয়্যারগুলোর সোর্সকোড দেখতে পারে। দু-তিন হাজার চোখ এড়িয়ে যাওয়া যত সহজ, কয়েক লক্ষ (হয়তো মিলিয়ন) চোখ এড়িয়ে যাওয়া ততটা সহজ নয়, এটাতো খুব সহজ হিসেব।

আরেকটা ব্যাপার রয়ে যাচ্ছে... অনেক ক্ষেত্রে একটা সিস্টেমে কতগুলো ত্রুটি আছে, তারচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হল একটা ত্রুটি ধরা পড়ে যাওয়ার পর কত দ্রুত সেটা সারিয়ে নেয়া হচ্ছে। হতে পারে একটা সিস্টেমে অনেক নিরাপত্তাজনিত ত্রুটি আছে, কিন্তু বাইরের কেউ (হ্যাকাররা) এই ব্যাপারে জানে না। সেক্ষেত্রে ত্রুটিগুলো কোন সমস্যা না। কিন্তু যখন একটা ত্রুটি হ্যাকারদের কাছে ধরা পড়ে যাবে, তখন তারা সেই ত্রুটিকে ভিত্তি করে ঐ সিস্টেমকে আক্রমন করতে শুরু করবে। এক্ষেত্রে যত দ্রুত সমস্যাটা সারিয়ে নেয়া যায়, ক্ষয়ক্ষতি তত কম হবে। লিনাক্সে এরকম ক্ষেত্রে ওপেন সোর্স কমিউনিটির যে কেউ ত্রুটিটার সমাধানে এগিয়ে আসতে পারে। সমাধান এবং আপডেট কয়েকদিন (এমনকি কোনক্ষেত্রে কয়েক ঘন্টার) মধ্যেই বের হয়ে যায়। মাইক্রোসফটের এত জনবল নেই; ত্রুটি বের হবার পর সিকিউরিটি প্যাচ বের করতে সাধারনত মাসখানেক সময় লেগে যায় (আদৌ যদি বের হয় আরকি)। ততদিনে যার যা ক্ষতি হবার তাতো হয়েই গেছে।